বৃহস্পতিবার , এপ্রিল 18 2024
bnen
Breaking News

ওয়ালটন মোবাইল কিস্তিতে কেনার নিয়ম (নতুন পদ্ধতি)

এই লেখাটিতে আমরা ওয়ালটন মোবাইল কিস্তিতে কেনার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। বর্তমানে আপনি ওয়ালটন থেকে খুব সহজেই সাধারণ শর্তে একটি মোবাইল ফোন কিস্তিতে ক্রয় করতে পারবেন।

যদি আপনার কাছে যথেষ্ট পরিমাণে নগদ অর্থ না থাকে তবুও আপনি ওয়ালটনের মোবাইল ক্রয় করতে পারবেন। যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা বা ওয়ালটনের আউটলেট থেকে সহজে কিস্তির মাধ্যমে মোবাইল ক্রয় করতে পারবেন।

এছাড়াও ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে EMI সিস্টেম ব্যবহার করে নিতে পারবেন ওয়ালটন মোবাইল। কিন্তু কিভাবে এই কিস্তি নিবেন আর সেটার জন্য কি কি শর্ত রয়েছে চলুন জেনে নেই।

কিস্তিতে কারা মোবাইল নিতে পারবে

যেকোনো পেশার মানুষ কিস্তিতে মোবাইল নিতে পারবে যেমন: ব্যাবসায়ী, সরকারি বা বেসরকারি চাকুরীজীবি, ছাত্রছাত্রী, কৃষক থেকে শুরু করে সর্বস্থরের মানুষ। তবে কিস্তিতে মোবাইল নেওয়ার জন্য একজন বা দু’জন গ্যারান্টর লাগবে।

ওয়ালটন এই সেবাটি সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করেছে। আপনিও পর্যাপ্ত ডকুমেন্টস ও তাদের রিকোয়ারমেন্ট পূরণ করে খুব সহজেই কিস্তিতে একটি মোবাইল ফোন নিতে পারবেন।

সর্বোচ্চ কত মাসের কিস্তিতে ওয়ালটন মোবাইল কেনা যায়

ওয়ালটন এখন সর্বোচ্চ ২৫ মাসের কিস্তি সুবিধা দিয়ে থাকে। গত ৩ এ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ নতুন এই সুবিধা কার্যকর করা হয়েছে। সারা দেশে যেকোনো ওয়ালটন প্লাজায় পাওয়া যাবে এই সুবিধা। চলুন জেনে নেই ওয়ালটন মোবাইল কিস্তিতে কেনার নিয়ম সম্পর্কে।

আরো জানতে পারেনঃ ১৫ হাজার টাকার মধ্যে ভালো মোবাইল।

ওয়ালটন মোবাইল কিস্তিতে কেনার নিয়ম

ওয়ালটন মোবাইল কিস্তিতে কেনার জন্য প্রথমে আপনার নিকটস্থ Walton প্লাজায় গিয়ে ম্যানেজারের সাথে যোগাযোগ করুন। এরপরে ম্যানেজার আপনাকে একটি ফরম প্রদান করবে, উক্ত ফর্মটি পূরণ করে এবং প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস প্রদান করে কিস্তিতে মোবাইল নিতে পারবেন।

কিস্তিতে মোবাইল ফোন কেনার জন্য কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন এই সম্পর্কে জানতে ওয়ালটনের হটলাইন নাম্বারে কল করুন। ওয়ালটনের হটলাইন নাম্বার ১৬২৬৭ বা ০৯৬১২৩১৬২৬৭।

ওয়ালটন বিভিন্ন দিবস অনুযায়ী অনেক অফার দিয়ে থাকে, ফেসবুকে ওয়ালটনের অফিসিয়াল পেজে যুক্ত হয়ে নিয়মিত তাদের সেই অফার গুলো সম্পর্কে জানতে পারেন। ওয়ালটনের মোবাইল কিস্তিতে নিতে হলে তাদের কিছু শর্ত রয়েছে, চলুন সেগুলো সম্পর্কে জেনে নেই।

কিস্তিতে ওয়ালটন মোবাইল নেওয়ার শর্ত

  • ১০,০০০ টাকা বা তার অধিক মূল্যের মোবাইল নিলে EMI সুবিধা থাকবে। এর কম মূল্যে মোবাইল নিলে এই সুবিধা পাবেন না।
  • কিস্তির জন্য আপনাকে নগদ ৪০% টাকা পেমেন্ট করতে হবে এবং বাকি ৬০% টাকা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মাসিক কিস্তিতে ধীরে ধীরে পরিশোধ করতে হবে।
  • আপনার ছবি ও জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি প্রয়োজন হবে।
  • ২ জন গ্যারান্টারের ছবি ও তাদের জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি।
  • অন্যান্য যাবতীয় সকল তথ্য সহ ওয়ালটনের দেওয়া নির্ধারিত ফরম পূরণ করতে হবে।

বিঃ দ্রঃ ওয়ালটন প্লাজার ম্যানেজার চাইলে আপনার কিস্তির আবেদন বাতিল করতে পারে।

EMI পদ্ধতিতে ওয়ালটন মোবাইল কেনার ইন্টারেস্ট কত পার্সেন্ট

এখন খুব সহজে EMI পদ্ধতিতে ওয়ালটন মোবাইল কিনতে পারবেন। EMI ব্যবহার করে মোবাইল নিলে পাবেন ১২ মাস পর্যন্ত ০% ইন্টারেস্ট সুবিধা। অর্থাৎ কোনো রকম সুদ প্রদান না করেই পেয়ে যাবেন আপনার কাঙ্খিত Walton মোবাইলটি।

ওয়ালটনের সব থেকে দামি মোবাইল কোনটা

বর্তমানে ওয়ালটনের সব থেকে দামি মোবাইল হচ্ছে Primo ZX4। এই মোবাইলে থাকছে ৮ GB Ram ও ১২৮ GB স্টোরেজ। এন্ড্রোইড ১১ দ্বারা চালিত, এই মোবাইলে পাচ্ছেন ৬.৬৭” FHD+ LTPS ডিসপ্লে এবং ৬৪ মেগাপিক্সেল মেইন ক্যামেরা ও ৩২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা।

এছাড়াও সাইড ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও ৪০০০ mAh Li-polymer ব্যাটারী সহ এই মোবাইলটি পাচ্ছেন মাত্র ২৬৯৯৯ টাকায়। এটাই ওয়ালটন এর বর্তমানে সব থেকে দামি মোবাইল ফোন।

ওয়ালটন প্লাজা কি

ওয়ালটন প্লাজা হলো ওয়ালটনের নতুন একটি আউটলেট। নেত্রকোনায় সর্বপ্রথম ২০২১ সালে চালু করা হয় এই আউটলেট। বর্তমানে দেশের প্রায় অধিকাংশ জেলায় ওয়ালটন প্লাজা তৈরী হয়েছে।

মূলত দেশের সর্বস্থরের মানুষের মাঝে কিস্তি সিস্টেমে ওয়ালটনের বিভিন্ন প্রোডাক্ট বিক্রয় করাই হলো এই আউটলেটের মূল উদ্দেশ্য। এর পাশাপাশি আপনারা ওয়ালটনের আউটলেট থেকে আরো অনেক ধরনের সুবিধা পাবেন।

ওয়ালটনের কি কি পণ্য আছে

রেফ্রিজারেটর এন্ড ফ্রিজার ওয়ালটনের সবচেয়ে বেশি বিক্রিত পণ্য। সাশ্রয়ী মূল্যে উচ্চমানের এয়ার কন্ডিশনার দিয়ে দেশের বাজারে শীর্ষস্থানে রয়েছে ওয়ালটন। এছাড়াও টেলিভিশন, কম্প্রেসর, ওয়ালটন মোবাইল, কম্পিউটার, ওয়ালটন মোটর সাইকেল সহ আরো অনেক কিছু রয়েছে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের।

FAQs

ওয়ালটনের সকল পণ্য কি কিস্তিতে কেনা যায়?

হ্যা, ওয়ালটন সকল পণ্যের উপর দিচ্ছে ৬ মাস থেকে ৩ বছর পর্যন্ত কিস্তির সুবিধা। এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আপনার নিকটস্থ ওয়ালটন প্লাজায় যোগাযোগ করুন।

ওয়ালটনের কতটি প্লাজা আছে?

বর্তমানে পুরো বাংলাদেশে ৩৫০ টির বেশি ওয়ালটন প্লাজা রয়েছে। প্রতিনিয়ত গ্রাহকদের চাহিদা অনুযায়ী নুতন নুতন ওয়ালটন প্লাজা তৈরি হচ্ছে।

About Sharo Place Desk

দীর্ঘদিন যাবত টেকনোলজি রিলেটেড কার্যক্রমের সাথে জড়িত আছি। আমার অভিজ্ঞতা থেকে এই ওয়েবসাইটটিতে টেকনোলজি, অনলাইন ইনকাম, টিপস এবং ট্রিকস, ই সার্ভিস, রিভিউ ও ব্যবসা রিলেটেড আর্টিকেল লেখালেখি করি।

Check Also

10000 টাকার মধ্যে ভিভো মোবাইল

10000 টাকার মধ্যে ভিভো মোবাইল ফোন

বর্তমানে বাংলাদেশে এবং ইন্ডিয়ায় ভিভো ব্র্যান্ডের মোবাইল ফোন গুলো অনেক জনপ্রিয়। অনেকেই তাদের পছন্দের মোবাইল …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।