বৃহস্পতিবার , এপ্রিল 18 2024
bnen
Breaking News

মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম ২০২৩

আমাদের জীবন চলাচল আরো সহজ করার জন্য মোটরসাইকেল অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। মোটরসাইকেল এর মাধ্যমে আমরা খুব সহজেই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করতে পারি। মোটরসাইকেল চালানোর জন্য অবশ্যই ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রয়োজন। মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম সম্পর্কে এই লেখাটিতে আলোচনা করা হয়েছে।

আমরা যারা মোটরসাইকেল ড্রাইভিং করতে পছন্দ করি তাদের অবশ্যই ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকতে হবে। কেননা ড্রাইভিং লাইসেন্স ব্যতীত গাড়ি ড্রাইভ করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। আপনার যদি ড্রাইভিং লাইসেন্স নাথাকে সেক্ষেত্রে অনলাইনের মাধ্যমে মোটরসাইকেল ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম এবং মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হবে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে অবশ্যই নিচের লেখাগুলো মনোযোগ দিয়ে পড়তে হবে।

মোটরসাইকেল ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার যোগ্যতা

আমরা চাইলে-ই ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করতে পারবোনা। ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করার জন্য অবশ্যই আমাদের কিছু যোগ্যতা অর্জন করতে হবে এবং একটি নির্দিষ্ট বয়সে আমরা ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করতে পারব। মোটরসাইকেল এর জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করতে যে সকল যোগ্যতা থাকা প্রয়োজনঃ

  • সাধারণত আমরা জানি ড্রাইভিং লাইসেন্স দুই ধরনের হয়ে থাকে ১: পেশাদার, ২: অপেশাদার। পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স এর ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রার্থীর বয়স ন্যূনতম ২০ বছর হতে হবে এবং অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স এর ক্ষেত্রে প্রার্থীর বয়স ন্যূনতম ১৮ বছর হতে হবে।
  • জাতীয় পরিচয় পত্র/ জন্ম নিবন্ধন সনদ অথবা পাসপোর্ট এর সত্যায়িত কপি থাকতে হবে।
  • প্রার্থীকে শারীরিক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকতে হবে।
  • মোটরসাইকেল ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই মোটরসাইকেল ড্রাইভিং এর দক্ষতা থাকতে হবে। অন্যথায় ফিল্ড টেস্টে খারাপ রেজাল্ট করার সম্ভাবনা আছে।
  • ন্যূনতম শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণী পাস।
  • ট্রাফিক রুলস গুলো সম্পর্কে জানা থাকতে হবে।
  • মোটরসাইকেল ড্রাইভিং করার নিয়ম কানুন সম্পর্কে জানতে হবে।

মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম

মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার জন্য সর্বপ্রথম https://bsp.brta.gov.bd/ এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে “নিবন্ধন” বাটনে ক্লিক করে একটি একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে এবং পরবর্তীতে “ড্রাইভিং লাইসেন্স” মেনু থেকে শিক্ষানবিস লাইসেন্সের জন্য আবেদন অপশনে গিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো প্রদান করে আবেদন করতে হবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করার ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে কিছু প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট সংগ্রহ  করে রাখতে হবে। যেগুলো আবেদন করার সময় প্রয়োজন হবে এবং পরবর্তীতে কাগজপত্রগুলো সংযুক্ত করতে হতে পারে। অনলাইনের মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক।

মোটরসাইকেল ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস

লার্নার বা শিক্ষানবিশ মোটর ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করার পূর্বে এই ডকুমেন্টগুলো সংগ্রহ করে রাখতে হবে। ডকুমেন্টসগুলো হলোঃ

  • বিদ্যুৎ বিল/ গ্যাস বিল/ টেলিফোন বিলের ফটোকপি।
  • অবশ্যই অনলাইনে আবেদন করতে হবে।
  • রেজিস্টার্ড মেডিকেল চিকিৎসক থেকে শারীরিক সুস্থতার সার্টিফিকেট।
  • সদ্যতোলা ১ কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  • সদ্যতোলা ৩ কপি স্টাম্প সাইজের ছবি।
  • ভোটার আইডি কার্ড/ জন্ম নিবন্ধন সনদ অথবা পাসপোর্ট সত্যায়িত ফটোকপি।
  • নির্ধারিত ফি (ক্যাটাগরি -১: ৩৪৫ টাকা এবং ক্যাটাগরি -২: ৫১৮ টাকা) BRTA নির্ধারিত ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে জমার রশিদ।

উক্ত ডকুমেন্টস গুলো সংগ্রহ করে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হবে এবং আবেদনের কিছুক্ষণ পরে আপনার দেওয়া মোবাইল নাম্বারে একটি এসএমএস এর মাধ্যমে প্রার্থীর লিখিত ও মৌলিক এবং ফিল্ড টেস্ট পরীক্ষার তারিখ জানিয়ে দেওয়া হবে।

এবং আপনি এই পরীক্ষাগুলো কোথায় দিতে চান সেটা আবেদনের সময় সিলেক্ট করে দিতে পারবেন। এই সকল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পরে নতুনভাবে স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য পুনরায় আবেদন করতে পারবেন।

স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ

বর্তমানে প্রযুক্তিগত উন্নয়নের ফলে আমরা স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স দেখতে পাই। এটি দেখতে আমাদের জাতীয় পরিচয় পত্রর মত দেখায়। আপনারা চাইলে এখন ঘরে বসে স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে পারেন। সম্প্রতি BRTA এর নতুন আপডেটে জানানো হয়েছে –

প্রার্থীরা শুধুমাত্র একবার BRTA অফিসে যোগাযোগ করে স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স সংগ্রহ করতে পারবেন এবং আপনাকে ডাক যোগাযোগের মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স ডেলিভারি দেওয়া হবে। শুধুমাত্র ১ বার BRTA পরীক্ষা কেন্দ্রে এসে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ এবং বায়োএনরোলমেন্ট প্রদান করতে হবে।

মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম

উপরের ছবিটিকে ভালোভাবে লক্ষ্য করে আপনারা BRTA এর আপডেট দেখতে পারবেন। অথবা https://bsp.brta.gov.bd/ এই লিংকে ক্লিক করলে পপ-আপ আকারে প্রথমে আপডেটটি শো করবে, এখান থেকে দেখে নিতে পারেন।

স্মার্টকার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস

স্মার্ট কার্ড ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য অবশ্যই আপনাকে এই সকল ডকুমেন্টস সংগ্রহ করে রাখতে হবেঃ

  • রেজিস্টার্ড ডাক্তার কর্তৃক প্রাপ্ত সার্টিফিকেট।
  • নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে।
  • ভোটার আইডি কার্ডের সত্যায়িত কপি (অবশ্যই উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তা BCS ক্যাডার দ্বারা সত্যায়িত করতে হবে)
  • পুলিশি তদন্ত প্রতিবেদন অথবা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট।
  • সদ্যতোলা পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি।
  • নির্ধারিত ফি –

পেশাদার : ১৬৭৯/ টাকা এবং অপেশাদার: ২৫৪২/ টাকা BRTA নির্ধারিত ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার রশিদ।

গুরুত্বপূর্ণ টিকা: পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট অনলাইনে যাচাই। 

মোটরসাইকেল ড্রাইভিং লাইসেন্স এর আবেদন

মোটরসাইকেল ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হলে সর্বপ্রথম BRTA এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে একাউন্ট ক্রিয়েট করে নিতে হবে। পরবর্তীতে ড্রাইভিং মেনু থেকে “শিক্ষানবিস লাইসেন্সের জন্য আবেদন” অপশনে প্রবেশ করে প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো দিয়ে আবেদন করতে হবে।

মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার আবেদন প্রক্রিয়া জটিল। যার কারণে এই প্রক্রিয়াটা লিখে বোঝানো সম্ভব নয়। তাতে আবেদন করতে গেলে অনেক জটিলতা দেখা যেতে পারে। তাই আপনাদের সুবিধার্থে নিচে একটি ভিডিও দেওয়া হল।

এই ভিডিওটি দেখে মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম এবং অনলাইনে মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার আবেদন করতে পারেন।

লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স ফরম ডাউনলোড

লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স ফরম ডাউনলোড করার জন্য সর্বপ্রথম “PDF FILE” লেখার উপরে ক্লিক করুন। এরপরে ডান কর্নারের ডাউনলোড চিহ্নের উপরে ক্লিক করে লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স ফরম পিডিএফ ফাইল হিসেবে ডাউনলোড করতে পারবেন।

এই ফরমটি আপনারা কম্পিউটারের মাধ্যমে পূরণ করতে পারবেন অথবা প্রিন্ট করে হাতে পূরণ করতে পারবেন। ড্রাইভিং লাইসেন্স করার সময় অবশ্যই অনলাইন থেকে লার্নার ড্রাইভিং লাইসেন্স ফরম ডাউনলোড করে নিবেন। এই ফরমের মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার আবেদন করতে হবে।

গুরুত্বপূর্ণ টিকা: অনলাইনে আপনার বয়স যাচাই করুন। 

About Sharo Place Desk

দীর্ঘদিন যাবত টেকনোলজি রিলেটেড কার্যক্রমের সাথে জড়িত আছি। আমার অভিজ্ঞতা থেকে এই ওয়েবসাইটটিতে টেকনোলজি, অনলাইন ইনকাম, টিপস এবং ট্রিকস, ই সার্ভিস, রিভিউ ও ব্যবসা রিলেটেড আর্টিকেল লেখালেখি করি।

Check Also

দারাজ থেকে পণ্য কেনার নিয়ম

দারাজ থেকে পণ্য কেনার নিয়ম | daraz online shopping

বাংলাদেশের সব থেকে জনপ্রিয় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দারাজ অন্যতম। বাংলাদেশ ব্যতীত এই ই কমার্স প্রতিষ্ঠানটি …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।